Current Bangladesh Time
বৃহস্পতিবার ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০ ২:০২ পূর্বাহ্ণ
Latest News
প্রচ্ছদ  » স্লাইডার নিউজ » হতদরিদ্র অটো চালকদের জন্য বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র লাইসেন্স নবায়ন পদ্ধতি বাতিল, পরিত্রাণ হয়নি অটো চালকদের 
বুধবার জানুয়ারি ২২, ২০২০ , ১:৩৮ অপরাহ্ণ
Print this E-mail this

হতদরিদ্র অটো চালকদের জন্য বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র লাইসেন্স নবায়ন পদ্ধতি বাতিল, পরিত্রাণ হয়নি অটো চালকদের


নিজস্ব প্রতিবেদক : হতদরিদ্র অটো চালকদের জন্য বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র লাইসেন্স নবায়ন পদ্ধতি বাতিল করলেও পরিত্রাণ হয়নি অটো চালকদের। প্রতি মাসেই লাইসেন্স ভাড়া গুনতে হচ্ছে কয়েক হাজার চালকদের। সরকার রাজস্ব না পেলেও লাইসেন্সের ভাড়া হাতিয়ে নিচ্ছেন মালিকরা; সাথে প্রতিদিনের অটো ভাড়া। এ বিয়ষটিতে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের কিছু করার নেই বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। এছাড়া যেহেতু লাইসেন্স নবায়ন্বন্ধ রাখা হয়েছে সে কারনে এ বিষয়ে কেউ কোন কথা বলতে রাজি হননি। বরিশাল সিটি কর্পোরেশন সূত্রে জানা গেছে, নগরীতে কর্পোরেশন অনুমোদিত ২৬১০ টি হলুদ অটো রয়েছে। এছাড়াও অসাধু উপায়ে আরও কয়েক হাজার অটো নগরীতে চলাচল করছে। এরমধ্যে কর্পোরেশন অনুমোদিত অটোগুলোর লাইসেন্স নবায়ন স্থগিত করেন মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ। কারন দিন দিন নগরীতে দ্রুত গতির থ্রি-হুইলার (মাহিন্দ্রা, সিএনজি) জনপ্রিয় হয়ে ওঠায় হলুদ অটোতে উঠতে চান না যাত্রীরা। হলুদ অটোর উপযুক্ত ফিটনেস না থাকা এবং বছর না ঘুরতেই নতুন গাড়ি লক্কর-ঝক্কর হয়ে যাওয়ায় এই জনপ্রিয়তা কমে গেছে। এদিকে নগরীর ট্রাফিক ব্যবস্থা অক্ষুন্ন রাখতে এবং যান চলাচলে গতি ধরে রাখতে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন ও মেট্রোপলিটন ট্রাফিক বিভাগ যৌথ সিদ্ধান্তে নগরীর প্রধান প্রধান সড়কে হলুদ অটো চলাচল বন্ধ রেখেছে। মেট্রোপলিটন ট্রাফিক পুলিশের উপ-কমিশনার খাইরুল ইসলাম জানিয়েছিলেন, পর্যায়ক্রমে হলুদ অটো মেট্রোপলিটন এলাকা থেকে তুলে দেওয়া হবে। এমতাবস্থায় হলুদ অটো চালকদের দিনের খরচ তুলতেই কষ্ট হচ্ছে। চাঁনমারির বাসিন্দা রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, মেয়র স্যার লাইসেন্স ফি মওকুফ করার পরও খরচের সাথে পাল্লা দিয়ে ভাড়া উঠাতে পারি না। কারন কেউ হলুদ অটোতে উঠতে চায় না। আরেক অটো চালক রুবেল বলেন, দেড় বছর আগে অটোটা কিনছি। এখন কেউ কিনতেও চায় না। কি করমু-বাধ্য হয়ে নিজে চালাই। নাইলেতো ঘরে বাজার জোটে না। সূত্র মতে, কর্পোরেশন অনুমোদিত ২৬১০টি হলুদ অটোর মধ্যে ১০% অটোর মালিক চালকরা। বাকি ৯০ ভাগ অটোর লাইসেন্সের মালিক অটো চালক নন। নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, সাবেক মেয়র আহসান হাবিব কামালের দায়িত্ব পালনের আমলে দুর্বৃত্তায়নের দ্বারা অটোর লাইসেন্স বেহাত করেছেন। তখন ‘কামালপন্থি’ হাতেগোনা কয়েকজন কাউন্সিলর, দলের অনুগত এবং মেয়রপুত্রের ঘনিষ্টজনরা সেই লাইসেন্সের মালিক বনে যান। অনুসন্ধান বলছে, কাউনিয়ার এক কাউন্সিলর তার নিজের নামে ২০০ অটোর লাইসেন্স, কেডিসি কলোনীর এক আ.লীগ নেতার নামে ১০০ লাইসেন্স নিজ নামে করিয়ে নিয়েছেন। শুধু এই ৩০০ লাইসেন্স নয়, বাকি লাইসেন্সের বেলায়ও এমন দুর্বৃত্তায়ন হয়েছে। অটো চালকরা জানিয়েছেন, বর্তমান মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ দায়িত্ব গ্রহণের পূর্বে লাইসেন্স ভাড়া নিয়ে অটো চালাতে হত। ওই সময়ে মাসপ্রতি প্রতি লাইসেন্স ভাড়া ১৫০০ থেকে ২০০০ টাকা পর্যন্ত দিতে হতো। সাদিক আব্দুল্লাহ দায়িত্ব গ্রহণের পর অটো চালকদের দারিদ্রতার কথা চিন্তা করে লাইসেন্স নবায়ন ফি মওকুফ করে দেন। সেই সাথে বন্ধ করে দেন হলুদ অটোর লাইসেন্স নবায়ন পদ্ধতি। মেয়রের এই উদারতায় অটো চালকরা হাফ ছেড়ে বাঁচলেও তা ছিল সাম্যক। কারন মেয়র লাইসেন্স ফি মওকুফ করলেও লাইসেন্স মালিকরা ভাড়া নিতে ভুল করছেন না। যদিও সিটি কর্পোরেশন থেকে লাইসেন্সের নবায়ন স্থগিত করায় হলুদ অটোর লাইসেন্সের কোন মূল্য না থাকলেও পুরানো পদ্ধতিতে মাসের পর মাস লাইসেন্স ভাড়া গুনে যাচ্ছে দরিদ্র অটো চালকরা। জানা গেছে ৯০ ভাগ লাইসেন্স চালকদের নামে না হলেও এখনো ভাড়া ১৫০০ থেকে ২০০০ টাকা ভাড়া গুনেই অটো চালাতে হয়। তাছাড়া প্রতিদিনের ভাড়াতো আছেই। ওদিকে লাইসেন্স ভাড়া নেওয়ার জন্য শুরুতে ২০ থেকে ৫০ হাজার টাকা জামানত নিয়েছিল লাইসেন্স মালিকরা। সেই টাকাও ফেরত দিচ্ছে না চালকদের। ফলে জমানত তুলতেও জিম্মি হয়ে লাইসেন্স ভাড়া গুনতে হচ্ছে। বদৌলতে কয়েকশ ভাড়া কম নিচ্ছে লাইসেন্স মালিকরা।এ বিষয়ে হলুদ অটো শ্রমিক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক লতিফ শিকদার লেদু বলেন, লাইসেন্স মালিকদের অত্যাচারে আমরা অতিষ্ঠ। একদিকে আমাদের জামানতের টাকা দেন না অন্য দিকে মেয়র স্যারের নির্দেশ উপেক্ষা করে লাইসেন্সের ভাড়া নিচ্ছেন। তিনি বলেন, বাতলি লাইসেন্স ক্রয় করে অটো চালাতে গিয়ে আমাদের অনেক কষ্ট হয়।
সূত্র : বরিশাল ক্রাইম নিউজ

Archives
Image
দিল্লির সংঘর্ষের দায় নিয়ে অমিত শাহের পদত্যাগ দাবি করলেন সোনিয়া গান্ধী!
Image
ইসলাম ধর্মের অনুসারী হলেও পাপিয়া নিয়মিত কালীমন্দিরে যেতেন!
Image
বরিশালে আবাসিক হোটেলে নিয়ে এক শিশুকে ধর্ষণ, ধর্ষককে খুঁজছে পুলিশ!
Image
আত্মহত্যা নয়, দুধ গরম করতে দেরি হওয়ায় বরিশালে খুন হলেন ছাত্রলীগ নেত্রী হেনা!
Image
মৃত্যুমিছিল আটকানো যাচ্ছে না ভারতের রাজধানী দিল্লিতে