Current Bangladesh Time
বুধবার অক্টোবর ২৮, ২০২০ ৬:১১ পূর্বাহ্ণ
Latest News
প্রচ্ছদ  » স্লাইডার নিউজ » বরিশালে দেশের সর্ববৃহৎ বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ম্যুরাল উদ্বোধন 
Monday September 28, 2020 , 8:21 pm
Print this E-mail this

জননেত্রী শেখ হাসিনা বাঁচলে বাংলাদেশ বাঁচবে – সাদিক আবদুল্লাহ্

বরিশালে দেশের সর্ববৃহৎ বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ম্যুরাল উদ্বোধন


মুক্তখবর ডেস্ক রিপোর্ট : বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ্ বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা বাঁচলে বাংলাদেশ বাঁচবে। বরিশালে যে ম্যুরালটি আমরা উদ্বোধন করলাম, আমার জানা মতে এটি দেশের ইতিহাসে সর্ববৃহৎ ম্যুরাল। পিতা এবং কন্যার মধ্যে যে স্নেহ-ভালোবাসা তা এই ম্যুরালটির মধ্যে ফুটে উঠেছে।

উল্লেখ্য রং-বেরংয়ের পাথর দিয়ে ৫০ ফুট উচ্চতার দৃষ্টিনন্দন ম্যুরালটির নির্মান কাজ শেষ করা হয়েছে ৪৫ দিন ও রাত পরিশ্রম করে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ ম্যুরালটির উচ্চতা ৫০ ফুট এবং চওড়া ৪০ ফুট। বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়ামকে ঘিরে নির্মিত হয়েছে এ ম্যুরালটি। যার নকশা তৈরি করেছেন ঢাকার চারুকলার একটি দল। আর ম্যুরালের চিত্রটির রূপ দিয়েছেন চারুকলার শিল্পী রুদ্র। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪ তম জন্ম দিন উপলক্ষে সোমবার সন্ধ্যায় বরিশাল নগরীতে দেশের সর্ববৃহৎ বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ম্যুরাল উদ্বোধন, দোয়া মোনাজাত এবং আলোচনা অনুষ্ঠানে মেয়র এসব কথা বলেন। এর আগে বরিশাল জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত নগরীর সদর রোডস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনায় মিলাদ ও দোয়া-মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। এরপর বরিশাল সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক নগরীর সদর রোডস্থ শহীদ মিনার সংলগ্ন বঙ্গবন্ধু অডিটোরিয়ামের উত্তর পাশে বিভিন্ন রং-বেরংয়ের পাথর দিয়ে নির্মিত দেশের সর্ববৃহৎ বঙ্গবন্ধু ও তাঁর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টিনন্দন ম্যুরালোর উদ্বোধন করেন, সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ্। সিটি কর্পোরেশনের পতাকা উন্মোচনের মধ্যে দিয়ে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ম্যুরালটি উদ্বোধন করা হয়। এসময় বঙ্গবন্ধু অডিটোরিয়ামের উপর থেকে ফুলের পাপড়ি আর বেলুন ছিটানো হয়। পাশাপাশি ম্যুরালটি উদ্বোধনের সাথে সাথে শহীদ মিনারের আকাশ নানান রংয়ের আতশবাজির ঝলকানিতে আলোকিত হয়ে ওঠে। বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার নাম সম্বলিত স্লোগানে মুখর হয় শহীদ মিনার এলাকা। সৃষ্টি হয় এক উৎসব মুখর পরিবেশ। উদ্বোধন পরবর্তী সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় বর্তমান সময়ে সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন সমস্যা-সম্ভাবনার কথা তুলে ধরে মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ্ আরও বলেন, মেয়র হিসেবে আমার সময় মাত্র পাঁচ বছর। অর্থের অপচয় রোধ করে টেকসই উন্নয়নে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আমার প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে। তিনি বলেন, বরিশাল নগরীতে জোয়ারের পানি উঠে গোটা শহর তলিয়ে যায়। এর জন্য যে সমস্যা হয় তার দায়ভার মেয়র হিসেবে আমাকেই নিতে হবে। কারণ আমি জনগণের প্রতিনিধি। তবে কেন এই জোয়ারের পানি উঠছে তাকি আপনারা কখনো ভেবে দেখেছেন? আপনারা না করলেও মেয়র হিসেবে আমি এই সমস্যার গোড়া উন্মোচন করেছি। সমস্যা সৃষ্টির কারণ শহরের মধ্যে ড্রেজিং করে জলাশয় ভরাট করণ। পাশাপাশি নগরীর প্রতিটি ড্রেন ময়লা আবর্জনায় ভরাট হয়েও জলাবদ্ধতা তৈরি করেছে। সমস্যা সমাধানে নগরীতে ড্রেজিং এর পাইপ ঢোকানো বন্ধ করেছি। প্রতিটি ড্রেন খুঁজে খুঁজে পরিষ্কার করা হয়েছে। আশা করছি এই সমস্যা ভবিষ্যতে আর থাকবে না। মেয়র বলেন, সিটি কর্পোরেশনের অধিকাংশ কাজ হচ্ছে কর্পোরেশনের নিজস্ব অর্থায়নে। এসকল কাজের জন্য এখন পর্যন্ত কোন বরাদ্দ আমরা পাইনি। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন-আমার অর্থের প্রয়োজন নেই। শুধুমাত্র আমার শহরের উন্নয়ন কাজগুলো বাস্তবায়িত হলেই যথেষ্ট। দুর্নীতির বিষয়ে সর্বোচ্চ কণ্ঠে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ্ বলেন, আমি নিজে দুর্নীতি করি না, দুর্নীতিকে প্রশ্রয়ও দেই না। এর প্রমাণও আপনারা পেয়েছেন। আমি আমার ঘরের লোককেও ছাড় দেইনি। সিটি কর্পোরেশনকে দুর্নীতি মুক্তি করেছি। এখন কোন নাগরিক সেবা নিতে এসে হয়রানির শিকার হচ্ছে না। আপনারা যদি কখনো আমার দুর্নীতি দেখতে পান তবে আমাকেও ছাড়বেন না।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান এবং প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া-মোনাজাতে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট তালুকদার মো: ইউনুস, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট এ কে এম জাহাঙ্গীর হোসাইন, বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র গাজী নঈমুল হোসেন লিটু, প্যানেল মেয়র অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম খোকন, বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাইল হোসেন, বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) মো: জাকির হোসেন মজুমদার-পিপিএম, বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট আফজালুল করিমসহ বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ৩০টি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক, সিটি কাউন্সিলর, জেলা এবং উপজেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা চেয়ারম্যান এবং পৌর মেয়রসহ আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা জানান, নবনির্মিত এ ম্যুরালটি ইতিহাস-ঐতিহ্যের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বরিশাল শহরকে জাগিয়ে তুলেছে। ম্যুরালটির চিত্র রূপকার চারুকলার শিল্পী রুদ্র বলেন, বিদেশী উন্নতমানের টাইলসের বিভিন্ন রং-বেরংয়ের টুকরা দিয়ে এটি চিত্রায়িত করা হয়েছে। চারজন সহযোগিকে নিয়ে দীর্ঘ ৪৫ দিন ও রাত পরিশ্রম করে এর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। এটি হবে দেশে জাতির জনকের সবচেয়ে বড় ম্যুরাল। এরআগে এতো বড় ম্যুরাল দেশের অন্য কোথাও নির্মাণ হয়নি বলেও তিনি উলে­খ করেন। বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গবন্ধুর কন্যার এ ঐতিহাসিক ম্যুরাল তৈরির জন্য বরিশালের মুক্তিযোদ্ধা, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, সাংবাদিকসহ সকল অঙ্গনের সর্বস্তরের জনতা সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ্-কে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

Archives
Image
চঞ্চল-শাওনের ভাইরাল ‘যুবতী রাধে’ গান নিয়ে বিতর্ক
Image
৯৯৯-এ কল করে পুলিশের সহযোগিতায় স্বজনদের খুঁজে পেল স্মৃতি হারানো তানিয়া
Image
দর্শক নন্দিনী মাহিয়া মাহির জন্মদিন আজ
Image
অভিমান করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর আত্মহত্যা
Image
বহুল আলোচিত বরগুনার রিফাত হত্যা মামলা : অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির রায় আজ