Current Bangladesh Time
শুক্রবার জুন ৫, ২০২০ ৮:৫২ অপরাহ্ণ
Latest News
প্রচ্ছদ  » স্লাইডার নিউজ » ফটোসেশন বটে! 
Thursday April 30, 2020 , 1:05 pm
Print this E-mail this

এই নাটককারীরা জোকারে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা

ফটোসেশন বটে!


সাইফুল ইসলাম : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে লীগ, ছাত্রলীগসহ সকল সংগঠনের নেতাকর্মীরা কৃষকের ধান কেটে দিয়েছেন। তবে নামি-দামি ব্যক্তিদের কর্মকাণ্ডে কৃষকদের মাঝে বিরূপ প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে বলে জানা গেছে। কৃষকদের অভিযোগ নামি-দামিরা ধান কাটছেন না, করছেন ‘ফটোসেশন’। কৃষককে সহযোগিতা করার নামে চোখে রঙিন চশমা, শাড়ি ও দামি জুতা পরে ধান কাটতে দেখা যায়। এই নাটককারীরা জোকারে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। দেশে কারোনা ভাইরাসের কারণে বোরো মৌসুমের ধান কাটতে শ্রমিক সংকটে পড়ছেন দেশের কৃষক সমাজ। কৃষকের এই দুর্দিনে তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, যুবলীগ ও ভ্রাতৃপীতম সংগঠন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। সংগঠনের নেতাকর্মীরা গরিব কৃষকের ধান কেটে বাড়িতেও পৌঁছে দিয়েছেন। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ধান কেটে প্রধানমন্ত্রীর বাহবাও কুড়িয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগ, যুবলীগ, কৃষকলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানানোর পর থেকেই কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছেন দলের নেতাকর্মীরা। একাধিক এমপি ও মন্ত্রী রয়েছেন। তারা দলবদ্ধভাবে ধান কাটতে গেছেন। তবে কৃষককে সহায়তা করার নামে অনেককে ফটোসেশন করেছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বেশ কয়েকদিন ধরেই এমপি ও মন্ত্রীদের ধান কাটার ছবি ভাইরাল হয়েছে। তারা কেউ পড়েছে রঙিন চশমা, আবার কেউ পরেছেন মুজিব কোট। আবার মহিলা নেত্রীরা পরেছেন জামদানি শাড়ি। বেশ কয়েকজনকে দামি জুতা পরেও ধান কাটতে দেখা গেছে। এ ছাড়া ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে এমপি কাঁচা ধান কাটা নিয়ে একটি ভিডিও। যদিও পরে সেই এমপি বলেছেন, ধানের পাতা কাঁচা কিন্তু ধান পাকা। এ কাজে নেমেছেন মহিলা সংরক্ষিত আসনের এমপিরাও। একজন নেতা ধান কাটতে গেলে সঙ্গে ১০ জন যাচ্ছেন ছবি তুলতে। অভিযোগ রয়েছে কৃষকের ক্ষেতে বসেই মোবাইলে লাইভ দিতে ও ছবি তুলতে গিয়ে নষ্ট করছেন কৃষকের কষ্টার্জিত ফসল। সূত্রে মতে, টাঙ্গাইল-২ (গোপালপুর-ভুঞাপুর) আসনের সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ছোট মনির ধান কাটার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। এরপর থেকে শুরু হয়েছে আলোচনা-সমালোচনা। কেউ বলছেন সংসদ সদস্য কাঁচা ধান কেটেছেন, আবার কেউবা বলছেন ওই ধান পাকাই ছিল। ছবিতে দেখা যায়, কাঁচা ধান দলবল নিয়ে কাটছেন এমপি। ছবি তোলার সময় অসহায়ের মতো সবকিছু তাকিয়ে দেখছেন জমির মালিক কৃষক। নেত্রকোনা-৩ (আটপাড়া-কেন্দুয়া) আসনের সংসদ সদস্য এবং আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল গনেশের হাওরে ধান কাটা পরিদর্শনে গিয়ে নিজেও কৃষকদের সঙ্গে ধান কাটায় অংশ নেন। এ সময় সংসদ সদস্যের সঙ্গে থাকা তার সহধর্মিণী অধ্যাপক অপু উকিলও ধান কাটায় অংশ নিয়েছেন। অপু উকিলকে একটি কাস্তে হাতে নিয়ে দাঁড়িয়ে ফটোসেশন করতে দেখা গেছে। অন্যদিকে কৃষক লীগের সাবেক সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক সংরক্ষিত মহিলা এমপি হোসনে আরা বেগমকে জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় ধান কাটতে দেখা যায়। তিনি চোখে রঙিন চশমা পড়ে ধান কাটেন। এই ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। তবে এ বিষয়ে কৃষক লীগের সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ্র বলেন, কৃষক লীগের নেতাকর্মীরা ধান কাটাকে আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে কৃষক লীগের নেতারা মাঠে ধান কাটছেন। যত দিন ধান থাকবে তত দিন নেতাকর্মীরা মাঠে থাকবেন। কৃষকের ন্যায্যমূল আদায় করা পর্যন্ত মাঠে থাকবেন তারা। এ ছাড়াও সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি শামীমা শাহরিয়াকেও ধান কাটতে দেখা গেছে। এই ছবিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। আওয়ামী লীগের জেলা পর্যায়ের এক নেতা বলেন, আমরা নেত্রীর নির্দেশে ধান কাট কেটেছি। নিজেরা না পারলে কৃষকদের শ্রমিক দিয়ে সহযোগিতা করেছি। আমাদের শ্রমিকের সংকট আছে। আমরা সেই সংকট মোকাবিলার জন্য অন্য জেলা থেকে শ্রমিক আনতে পারি। কিন্তু জনপ্রতিনিধিদের এ ধরনের কাজে আমরা হতবাক। তারা নিজেরা ফটোসেশনে ব্যস্ত। কিছু সময় হয়তো কর্মীরা ধান কাটবে কিন্তু সব সময় না। জনপ্রতিনিধিরা চাইলেই শ্রমিক ব্যবস্থা করতে পারেন। এমন দুর্যোগের দিনে তাদের কাণ্ডজ্ঞানহীন কাজের নিন্দা জানানোরও রুচি হয় না। জনসেবার নামে তামাশা চলছে। তামাশা দেখছি কৃষকের ধান কাটা নিয়েও। জনসেবার নামে লোক দেখানো তামাশা জাতির বড় ক্ষতির কারণ হতে পারে। তা উপলব্ধি করার ক্ষমতা তারা হারিয়ে ফেলেছেন। এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক বলেন, কিছু লোকজন সব জায়গায় প্রচার-প্রচারণা নিতে চায়। একটা সুবিধা নিতে চায়। এইগুলো ভালো লক্ষণ না। আর সাধারণ মানুষ যেভাবে দেখছেন তার বিপরীতে আমরা দেখছি না। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, আমাদের নেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী যে আহ্বান জানিয়েছেন তার পরিপ্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, কৃষক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগ ও শ্রমিক লীগের নেতারা ধান কাটতে মাঠে নেমেছেন। দুুর্যোগকালীন সময়ে কৃষকের ধান কাটা ও মারাই করতে কৃষক যে শ্রমিকের সংকট পড়েছিলেন তা দূর করার জন্য তারা নেমেছেন। আমাদের নেতাকর্মীরা আন্তরিক ভাবেই কাজটি করেছিলেন। কৃষককে সকলের অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে আশা জাগিয়েছেন ও উৎসাহিত করেছেন। যারা এই কাজে অংশ নিয়েছেন সবাইকে অভিনন্দন জানাই। আর যারা নাটক করেছেন অথবা নাটক করার চেষ্টা করেছেন তাদের কিন্তু দেশের মানুষ ভালোভাবে গ্রহণ করেনি। তিনি আরো বলেন, এটা অবশ্যই একটা অসম্মানজনক কাজ করেছেন। এটা নেতিবাচক হিসেবেই প্রচারিত হবে। আমরা এই কর্মকাণ্ডকে ভালোভাবে নেইনি। যারা এ রকম কর্মকাণ্ড করেছেন ইতোমধ্যে মানুষই তাদের হাসির পাত্র ও জোকারে পরিণত করেছেন। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এটাকে আমরা ভালোভাবে নেইনি।

সূত্র : মানবকণ্ঠ  প্রকাশকাল : ৩০ এপ্রিল ২০২০ ইং

Archives
Image
বরিশালে মাদ্রাসার এক শিক্ষককে মানুষিক ও শারীরিক নির্যাতন, উদ্বিগ্ন মানবাধিকার!
Image
ঝালকাঠি আ’লীগের সম্পাদক পনির’র মাতার মৃত্যুতে তালুকদার মোঃ ইউনুস’র শোক
Image
ফের বাড়ছে সাধারণ ছুটি ও কড়া লকডাউন
Image
র‌্যাব-৮’র অভিযানে গোপালগঞ্জ হতে মানব পাচার চক্রের সাথে সংশ্লিষ্ট ২ জন গ্রেফতার
Image
করোনা : আমার করুন অভিজ্ঞতা – কাজী মিরাজ